নববর্ষ সংখ্যা, ৪ বৈশাখ, ১৪২৮, রবিবার

কবিতা
সুদীপ্ত ভট্টাচার্য্য
তর্পয়ামি স্বাহা

মঞ্চের পর্দা নেমে গেলে গাছেরা ঘুমাতে গিয়েছিল
এতক্ষণ খোলা জানালা ও আহত আলোদের প্রতিক্রিয়ায় চলাচল ছিল যে সমস্ত চরিত্র
তারা একে একে প্রতিটি হৃদয়ে প্রতীক এঁকে দিয়েছিল স্বপ্নের
তবু গাছেরা ঘুমাতে গিয়েছিল ঝিঁঝিঁদের কোলে

একটানা বিষাদের মোজার্ট বাজিয়ে গাছেদের মাথা থপথপিয়ে দিচ্ছিল ঝিঁঝিঁরা
কাক আর ফিঙেরা সন্ধ‍্যেবেলায় অন্ধত্ব পেয়েছিল বলে
প্রাচীন কবরখানায় বাদুড়েরা বারুদধূপ জ্বালিয়ে সিংহাসনের পূজো সেরে নিয়েছিল চুপিচুপি
আর প্রতিটি বলিদানের পরে সূর্য হাই তুলে পাশ ফিরে শুয়েছিল
ঘুমন্ত গাছেদের পা ছুঁয়ে থাকা সবকটি মৃত নদী ভরে উঠেছিল রুধিরস্রোতে

শতাব্দী প্রাচীনকাল ধরে আজও গাছেরা ঘুম ভেঙ্গে রক্ত তর্পণ করে পূবদিকে মাথা নিচু করে…..

সাম্প্রতিক পোষ্ট