লেখা পাঠানোর নিয়মাবলী

কেয়াপাতা- জুলাই সংস্করণ, ২০২০

ই-বুক/ পিডিএফ
32
  • ওয়েবসাইটের পাশাপাশি কেয়পাতা এবার আপনার ডিজিটাল লাইব্রেরীতেও।
  • এই সংস্করণে রয়েছে কবিতা, গুচ্ছ কবিতা, বাংলাদেশের কবিতা, প্রবন্ধ, অণুগল্প, গল্প, নাটক।
  • কেনার পর ইমেলে 'ডাউনলোড' লিঙ্ক পাবেন। ইনবক্সের সাথে স্পাম ফোল্ডারটাও দেখে নেবেন।
প্রকাশিত
লেখা পাঠানোর নিয়মাবলী

পৃথিবীর যে কোনো প্রান্তের যে কেউ  ‘কেয়াপাতা’-য় লেখা পাঠাতে পারেন। লেখা পাঠানোর পূর্বে নীচের অংশটি পড়ে নিন। 

‘কেয়াপাতা’ কী ধরনের লেখা ধারন করে ‘কেয়াপাতা’র ওয়েবসাইটের বিভিন্ন বিভাগ তার পরিচায়ক। যেকোন বিভাগের জন্য লেখা পাঠানো যেতে পারে। লেখা হতে হবে অপ্রকাশিত। প্রয়োজনে পরিমার্জন ও পরিবর্ধনে সম্পাদকমণ্ডলী স্বাধীন সিদ্ধান্ত নেয়। মনোনয়ন সংবাদের জন্য অপেক্ষা করুন।

‘সাপ্তাহিক কেয়াপাতা’ প্রকাশ পায় প্রতি রবিবার।  ‘সাপ্তাহিক কেয়াপাতা’-র জন্য লেখা পাঠান, লেখা পাঠাতে পারেন যে কোনো সময়।

‘ছোটদের বিভাগ’ ‘কেয়াপাতা’র অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বিভাগ।  ছোটদের সাহিত্য চর্চায় উৎসাহ দেওয়ার জন্যই এই বিভাগ। দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত ছাত্র-ছাত্রীরা বিদ্যালয়ের নাম, শ্রেণী উল্লেখ করে লেখা পাঠাতে পারে এই বিভাগে। কিশোর সাহিত্যের এই বিভাগ অন্যদের জন্যও উন্মুক্ত। লেখা পাঠানোর সময় বিভাগ উল্লেখ করে দিতে হবে। 

লেখা পাঠান মেল বডিতে টাইপ করে অথবা ওয়ার্ড ডকুমেন্সে। ইউনিকোড হরফ ব্যবহার করা বাঞ্ছনীয়। পিডিএফ বা ছবিতুলে পাঠানো লেখা কোনভাবেই বিবেচিত হয় না। প্রয়োজনে হোয়াটসঅ্যাপে লেখা পাঠানো যেতে পারে।

লেখার সঙ্গে নিজের সম্পূর্ণ ঠিকানা ও  ছবি অবশ্যই পাঠাতে হবে। 

লেখা আপনি অসংখ্য বার পাঠাতে পারেন। কিন্তু একবারে কবিতা ও ছড়ার ক্ষেত্রে অনধিক চারটি ও গদ্যের ক্ষেত্রে একটিই পাঠানো যাবে। 

লেখার  সাথে কোনো আইনগত বা যেকোনো রকম জটিলতা দেখা দিলে তার দায় লেখকের। পত্রিকা গোষ্ঠী কোনোভাবেই দায় নেবেন না। 

‘কেয়াপাতা’- য় লেখা নির্বাচনের ক্ষেত্রে পরিচিতি বা সদস্য হওয়া না হওয়ার কোন সম্পর্ক নেই। লেখার নির্বাচনে লেখার গুনমানই একমাত্র বিবেচ্য। 

আপনার অনুভূতির স্পর্শে ‘কেয়াপাতা’ আরও সবুজ হয়ে উঠুক। 

লেখা পাঠানোর নম্বর ও ইমেল ঠিকানা:

রবিবাসরীয়
আসছে...
শেয়ার করুন

সাহিত্যিক বিভাস রায়চৌধুরীর সাক্ষাৎকার

X